বেতনের অর্ধেকেরও বেশি টাকা তো যাতায়াতে চলে যাবে | দ্বিতীয় দফা লকডাউন | দেশ-বিদেশ২৪ |





শেয়ার

পতেঙ্গার দক্ষিণ পাড়া থেকে সিইপিজেড এর উদ্দেশ্য রওনা দেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকুরিজীবী মোঃ সাজ্জাদ হোসেন। অফিস পৌছাতে সাধারণত তার খরচ হয় দৈনিক আসা যাওয়াতে ৩০ টাকা। 

কিছু দূর পায়ে হেঁটে কিছু দূর রিকশা করে অফিস যেতে (শুধু যাওয়াতে এখনো আসা বাকী) আজ মঙ্গলবার খরচ হয়েছে ১৪০ টাকা। গতকাল খরচ হয়েছে আসা যাওয়াতে ২২০ টাকা। অফিস যাতায়াতের কোন ব্যবস্থা নেয়নি। সাজ্জাদ বলেন, দৈনিক এইভাবে আসা যাওয়া কঠিন। এইভাবে চললে বেতনের অর্ধেকেরও বেশী টাকা যাতায়াত খরচ চলে যাবে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে দেশজুড়ে গতকাল সোমবার থেকে সরকারিভাবে নানা বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। আজ দ্বিতীয় দিনের শুরুটাও হয় গতকালের মতো অফিসগামীদের ভোগান্তি দিয়ে।  সরকারি কিছু প্রতিষ্ঠান সহ বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো খোলা আছে। এদিকে গণপরিবহনও বন্ধ।  এতে চট্টগ্রামের বিভিন্ন মোড়ে অফিসগামী মানুষদের বিভিন্ন ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

অন্যদিকে আরো একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকুরিজীবী আরিফুল ইসলাম মোমিন যার অফিস যাতায়াতে খরচ হত ১০ টাকা। এখন রিকশা করে খরচ হচ্ছে ৫০ টাকা। আরিফ বলেন,

"লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। অথচ অফিস খোলা আছে। এ অবস্থায় অফিস যেতে হবে। চাকরি চলে গেলে পরিবার নিয়ে বিপদে পড়তে হবে। কি আর করার, কষ্ট হলেও অফিসে যেতে হবে।"

ইসমাইল হোসেন নয়ন / দেশ-বিদেশ২৪

 

চাকুরী


শেয়ার