ওজনে অভিনব কারচুপি, প্রতি মাছে ২০০ গ্রাম কম, অভিযানে ধরা





শেয়ার

চট্টগ্রাম : নগরীর খুলশি থানার কর্নফূলী কমপ্লেক্স মার্কেটের আলী হোসেনের মাছের দোকানে এই কারচুপি ধরা পড়ে। কাপড়ের ভেঁজা ব্যাগ ব্যবহার করে প্রতি মাছে প্রায় ২০০ গ্রাম ওজন কম দিয়ে বিক্রেতাকে ঠকানো হচ্ছিল। এসময় ভোক্তা অধিকার পরিচালিত অভিযানে বিষয়টি নজরে আসে এবং উক্ত অপরাধে ত্রিশ হাজার টাকা জরিমানাসহ ৯টি ব্যাগ ধ্বংস করা হয়। উল্লেখ্য এই ব্যক্তিকে ইতোপূর্বেও সতর্ক করা হয়েছে।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয় কর্তৃক আজ ১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম মহানগরীর  খুলশি, হালিশহরও পাহাড়তলী থানায় অভিযান পরিচালিত হয়। সকাল ১০টা হতে পরিচালিত অভিযানে ১০ প্রতিষ্ঠানকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের বিভিন্ন ধারায় ঊনআশি হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অভিযানে ওজন কারচুপিতে ব্যবহৃত ব্যাগ, মেয়াদোত্তীর্ণ খাদ্যদ্রব্য ধ্বংসসহ কম ওজনের ৪টি বাটখারা আটক করা হয়।

অন্যদিকে হালিশহর থানার বাগানবাড়ি রেস্তোরাঁকে জমানো পানিতে তৈজসপত্র ধৌত করায়, খোলা ডাস্টবিন রাখায় ও অস্বাস্থ্যকর অবস্থায় খাদ্যদ্রব্য সংরক্ষণ করায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একই থানার সবুজবাগের শারমিন স্টোরকে উৎপাদন-মেয়াদবিহীন কেক সংরক্ষণ করায় ২ হাজার টাকা জরিমানা করে সতর্ক করা হয়। বাগানবাড়ি সুইটসকে উৎপাদন মেয়াদ বিহীন মোড়কজাত দুধ সংরক্ষণ করায়, মেয়াদোত্তীর্ণ দই, শিশুখাদ্য ও অন্যান্য খাদ্যদ্রব্য সংরক্ষণ করায় ২০ হাজার জরিমানা করে উপরোক্ত খাদ্যদ্রব্য ধ্বংস করা হয়।

একই দিনে পাহাড়তলী থানার ফইল্যাতলি বাজারে মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় জাবেদের মাংসের দোকানকে ৩ হাজার, জনির মাংসের দোকানকে  ৩ হাজার, জাকেরের মুরগির দোকানকে ৩ হাজার, জামালের মুরগীর দোকানকে  ৩ হাজার, দিদার সওদাগরের মুরগীর দেকানকে ৩ হাজার টাকা জরিমানা করে সতর্ক করা হয়। রনজিতের মাছের দোকানকে কম ওজনের বাটখারা ব্যবহার করে মাছ বিক্রয় করায় ২ হাজার টাকা জরিমানা করে ৪টি বাটখারা জব্দ করা হয়।

এছাড়া অভিযানে টিসিবি পরিচালিত ট্রাকসেল কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করা হয়। নগরীর ২২ টি স্থানে টিসিবি কর্তৃক ভর্তুকিমূল্যে চিনি, পেঁয়াজ, সয়াবিনতেল, ছোলা ও মসুরডাল বিক্রয় করা হচ্ছে। এসময় ভোক্তা সাধারণের মাঝে ভোক্তা-অধিকার বিষয়ক লিফলেট-প্যাম্ফলেট বিতরণ করা হয়। পাশাপাশি মাস্ক পরিধানপূর্বক নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে পণ্য ক্রয় এবং পণ্য ক্রয়ের ক্ষেত্রে প্রতারিত হলে অধিদপ্তরের হট লাইন নম্বর ১৬১২১ এ অভিযোগ জানাতে অনুরোধ করা হয়।

জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ ফয়েজ উল্যাহ, সহকারী পরিচালক (মেট্রো) পাপীয়া সুলতানা লীজা  ও চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান অভিযান পরিচালনা করেন।

জনস্বার্থে এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানান চট্টগ্রাম জেলা সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

চট্টগ্রাম


শেয়ার